Ajker Kashiani
বেথুরী

কাশিয়ানীতে ভাবি-ভাতিজাকে পু’ড়ি’য়ে হ’ত্যা মা’ম’লা’র আ’সামি গ্রে’ফ’তা’র

কাশিয়ানী  প্রতিনিধি:- গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ঘুমন্ত অবস্থায় পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে ভাবি-ভাতিজাকে পুড়িয়ে হত্যা (ডাবল মার্ডার) মামলার আসামি হোসাইন মিয়াকে (৩০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় উপজেলার দক্ষিণ ফুকরা গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

হোসাইন উপজেলার বেথুড়ী ইউনিয়নের সাধুহাটি গ্রামের এমদাদ মিয়ার ছেলে।

গ্রেফতারের বিষয়টি কাশিয়ানী থানার রামদিয়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রামদিয়া তদন্ত কেন্দ্রের একদল পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে হোসাইনকে গ্রেফতার করে। বৃহস্পতিবার সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও জানান, হোসাইন এরআগেও তার আপন বড় ভাই মোরাদ হোসেন মিয়াকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছিল। সেই মামলায় দীর্ঘদিন হাজতবাস করেন। জামিনে বেরিয়ে দেড় মাস পরে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটিয়ে পালিয়ে ছিলেন।

জানা গেছে, গত ৬ জানুয়ারি রাতে বড় ভাই মোরাদ মিয়ার বসতঘরে পেট্রোল ঢেলে আপন ভাবি ফাতেমা বেগম (৩২) ও সাত মাস বয়সী ভাতিজা আব্দুর রহিমকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করে হোসাইন। আগুনে দগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে শিশু আব্দুর রহিম মারা যায়। এর কিছুদিন পর অগ্নিদগ্ধ ফাতেমা বেগম ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এ ঘটনায় নিহত ফাতেমা বেগমের স্বামী মোরাদ মিয়া বাদী হয়ে কাশিয়ানী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।